আজ ১৩ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

বিশ্ববিদ্যালয় খোলার পর অস্থিরতা সৃষ্টির চেষ্টা চালাবে অপশক্তি: কাদের

অনলাইন ডেস্ক: রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ের দলীয় কার্যালয়ে ছাত্রলীগের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা আয়োজিত শোক দিবসের অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন ওবায়দুল কাদের।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বিশেষ করে বিশ্ববিদ্যালয় খোলার প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার সঙ্গে অনেক অপশক্তিও প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে মনে করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলতে যাচ্ছে। শিগগিরই বিশ্ববিদ্যালয় খুলবে। অনেক অপশক্তিও প্রস্তুতি নিচ্ছে। অস্থিরতা সৃষ্টি হতে পারে। বিশ্ববিদ্যালয়কে ঘিরে এই শক্তি বিশৃঙ্খলা তৈরি করবে।

আজ শুক্রবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ের দলীয় কার্যালয়ে ছাত্রলীগের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা আয়োজিত শোক দিবসের অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন ওবায়দুল কাদের।

অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরির প্রস্তুতির বিরুদ্ধে ছাত্রলীগকে সজাগ থাকার আহ্বান জানিয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে নিজেরা নিজেদের শত্রু হবেন না। ছাত্রলীগকে খারাপ খবরের শিরোনাম হিসেবে তিনি দেখতে চান না। তিনি বলেন, অপশক্তি গোষ্ঠী অস্থিতিশীলতার প্রস্তুতি নিচ্ছে। এ অবস্থায় ছাত্রলীগকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

বিজ্ঞাপন

দেশে এখনো ষড়যন্ত্রের রাজনীতি চলমান রয়েছে উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, তরুণদের সতর্ক হতে হবে। সামনের দিনে আরও কঠিন চ্যালেঞ্জ আছে। দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার একটি দেশে ক্ষমতার পরিবর্তনের পর এখানে যারা উল্লসিত, তাদের কী মতলব ও উদ্দেশ্য, তা বুঝতে হবে।

বিজ্ঞাপন

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের উদ্দেশে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘মির্জা ফখরুল ইসলামকে এত প্রশ্ন করি, তিনি জবাব দেন না। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর মোশতাকের প্রধান সেনাপতি কে ছিল? বঙ্গবন্ধুর খুনিদের কে বিদেশে পাঠিয়েছিল, কে খুনিদের বিদেশে চাকরি দিয়েছিল, পুরস্কৃত করেছিল। উত্তর দিতে পারবেন না। এ জন্য আগস্ট মাস এলে তাদের গাত্র জ্বালা করে।’

বিএনপির আন্দোলন প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘দেখতে দেখতে এক যুগ চলে গেল। এই বছর না ওই বছর। আন্দোলন হবে কোন বছর?’ চন্দ্রিমা উদ্যানে জিয়াউর রহমানের লাশ নেই চ্যালেঞ্জ করে তিনি বলেন, চন্দ্রিমা উদ্যানে জিয়ার লাশ থাকলে তিনি সে ছবি দেখতে চান।

বিজ্ঞাপন

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ শাখার সভাপতি সনজিত চন্দ্র দাসের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসাইনের সঞ্চালনায় আরও বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য মিজানুর রহমান, ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয়, সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য প্রমুখ। তথ্য সূত্র: প্রথম আলো

মানব চেতনা/এমআর

Facebook Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category