আজ ৩রা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৬ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

৩১ টেকনোলজির সরকারি চাকরিতে অন্তর্ভূক্তকরণের দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ কর্মসূচি পালিত

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

সরকারি চাকরির নীতিমালা সংশোধন করে সকল টেকনোলজির সমান সুযোগ নিশ্চিত করতে ১৫ মার্চ সকাল ১০.০০ টা থেকে সারাদেশ থেকে আগত ডিপ্লোমা প্রকৌশলী এবং প্রশিক্ষণার্থীদের অংশগ্রহণে বিশাল মানববন্ধন এবং বিক্ষোভ কর্মসূচি পালিত হয়েছে।

উক্ত মানববন্ধনে তানভীর আহমেদের সঞ্চালনায় শীপবিল্ডিং টেকনোলজির প্রতিনিধি মোঃ শফিকুল ইসলাম রাজীব তার জ্বালাময়ী বক্তব্যে সকল টেকনোলজির অসহায়ত্ব এবং কর্তৃপক্ষের উদাসীনতা তুলে ধরেন। তিনি বলেন শীপবিল্ডিং সিলেবাস প্রায় ৭৫% মেকানিক্যাল টেকনোলজির সিলেবাসের সাথে সামঞ্জস্য থাকা সত্ত্বেও তারা সমমান টেকনোলজি হিসেবে কেন সরকারি চাকরিতে আবেদন করতে পারবে না? এছাড়াও রেফ্রিজারেশন এন্ড এয়ারকন্ডিশনিং, মাইনিং এন্ড মাইন সার্ভে, মেরিন টেকনোলজি, ইলেক্ট্রুমেন্টেশন এন্ড প্রসেস কন্ট্রোল ইত্যাদি টেকনোলজি গুলো মেকানিক্যাল টেকনোলজির সমান সিলেবাস সম্পন্ন করে থাকে।
সিভিল টেকনোলজির সিলেবাসের সাথে সিভিল উড এবং কনস্ট্রাকশন টেকনোলজির সিলেবাস সামঞ্জস্য থাকা সত্ত্বেও একসাথে আবেদন করার সুযোগ পাচ্ছে না।
ইলেকট্রনিক্স টেকনোলজি ইলেকট্রিক্যাল টেকনোলজির সমমান হওয়া স্বত্বেও প্রতিনিয়ত বঞ্চিত হচ্ছে।
এগুলো শুধুমাত্র উদাহরণ, সকল টেকনোলজির অবস্থা আজ ভয়াবহ।

কনস্ট্রাকশন টেকনোলজির প্রতিনিধি নজরুল ইসলাম সাদ্দাম তার বক্তব্যে বলেন লিখিত পরীক্ষায় যোগ্যতা প্রমাণ করা সত্ত্বেও মৌখিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে দেওয়া হচ্ছে না শুধুমাত্র সমমান টেকনোলজি উল্লেখ না থাকায়, এর চেয়ে বেশি কষ্ট আর কি হতে পারে। কারিগরি বোর্ড এবং কারিগরি অধিদপ্তর এর দায়ভার কোনভাবেই এড়িয়ে যেতে পারে না।

সকল টেকনোলজির পক্ষে বক্তারা সুষ্ঠু সমাধান নিশ্চিত করতে কর্তৃপক্ষকে দ্রুত কাজ করার তাগিদ দেন।
কারিগরি অধিদপ্তরের ডিজি মহোদয় এবং কারিগরি বোর্ডের সচিব মহোদয়কে ৩১ টেকনোলজির পক্ষে স্মারকলিপি প্রদান করেন সিভিল (উড) টেকনোলজির প্রতিনিধি মোবারক হোসেন।

কারিগরি অধিদপ্তরের ডিজি মহোদয়ের সাথে কনফারেন্স রুমে আলোচনা শেষে ডিজি মহোদয় সবকিছু শুনে আমাদের নৈতিক দাবির পক্ষে সমর্থন এবং যা করা প্রয়োজন তা করবেন বলে অঙ্গীকার করেন। এছাড়াও ডিজি মহোদয় নিজে শিক্ষা মন্ত্রণালয় সচিবের সাথে আলোচনা করতে নিজ উদ্যোগে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাননীয় সচিবের সাথে দেখা করতে পাঁচজন প্রতিনিধি ঠিক করেন যারা সমগ্র টেকনোলজির অসহায়ত্বের কথা সচিবের মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট পৌঁছে দিবেন ।
উক্ত মানববন্ধন এবং বিক্ষোভ কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করে শীপবিল্ডিং, কনস্ট্রাকশন, সিভিল (উড), এনভায়রনমেন্টাল রেফ্রিজারেশন এন্ড এয়ারকন্ডিশনিং, মাইনিং এন্ড মাই সার্ভে, ইলেক্ট্রুমেন্টেশন এন্ড প্রসেস কন্ট্রোল, আর্কিটেকচার এন্ড ইন্টেরিয়র ডিজাইন, ইলেকট্রনিকস সহ ৩১ টেকনোলজির অবহেলিত প্রশিক্ষণার্থীরা।
বিকাল তিনটা পর্যন্ত মানববন্ধন এবং বিক্ষোভ কর্মসূচি পালিত হয়।

মানব চেতনা /এইচএম

Facebook Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category